শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং, ,

 

দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন হুদা দম্পতি

সম্পত্তি হস্তান্তর বা মালিকানা পরিবর্তনের অন্যতম সুন্দর উপায় হল ‘দান’। ভূ-সম্পত্তির মালিকরা তাঁদের স্নেহধন্য মানুষকে বা ভালোবাসার ব্যক্তিকে সাধারণত দিয়ে থাকেন। কিন্তু ডা.দম্পতির দানের ক্ষেত্রে একটু ভিন্ন কাজ করে সবার কাছে স্বরণীয় ও সম্মানিত হয়ে গেলেন।

১৮৮২ সালের সম্পত্তি হস্তান্তর আইন অনুযায়ী কোনো স্থাবর বা অস্থাবর সম্পত্তি স্বেচ্ছায় কোনো মূল্য বা বিনিময় ব্যতিরেকে ব্যক্তিকে অথবা কোন প্রতিষ্ঠানকে ‘দান’ করা যায়। আবার মুসলিম আইন অনুযায়ী সম্পত্তি নিস্বার্থভাবে কাউকে বা কোন প্রতিষ্ঠানের নামেও দেওয়াকে ‘দান’ বুঝায়। দানের ক্ষেত্রে আটটি ক্ষেত্র রয়েছে। মুসলিম আইন অনুযায়ী উইল বা ভবিষ্যৎ দানেরও বিধান রয়েছে। কোনো মুসলমান অন্য কোনো মুসলমানকে বা প্রতিষ্ঠানকে কোনো বিনিময় ব্যতিরেকে সম্পত্তি হস্তান্তর করলে তা ধরা হয় ‘দান’।
FB_IMG_1511450666163
৫ তালা বাড়িটি দানের এই সিদ্ধান্ত শুধু ডা.হুদা ওনার একার নয়, সাথে রয়েছেন তার স্ত্রী ডা.রোকসানা হুদা। দুজনে মিলে “আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম” হস্তান্তর করেছেন।
FB_IMG_1511450649585
ডা.হুদা ও ডা.রোকসানা হুদা আজ ২৩শে নভেম্বর তাদের তেজস্তুরি বাজারের ৫ তালা বাড়ি টি “আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম” কে দান করলেন। ডা:দম্পতির ইচ্ছানুযায়ী এই বাড়িতে একটি মেয়েদের অনাথালয় যাকে আমরা “হোম” বলি, স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দান সম্পন্ন করার জন্য তিনটি বিষয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ-দানের প্রস্তাব, গ্রহীতার সম্মতি এবং দখল হস্তান্তর। স্থাবর বা অস্থাবর সব ধরনের সম্পত্তি যে কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিকে দান করা যায়।
FB_IMG_1511450655291
“আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম” কতৃপক্ষ তাদের এ দান যেন আল্লাহ রাব্বুল আলামিন কবুল করে নেন সে জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। এ ধরনের দৃষ্টান্ত সমাজের অন্যান্য বিওবানরাও অনুসরন করবে বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরও খবর